বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ০২:৫৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
মানবিক বাংলাদেশ সাপাহার উপজেলা শাখার মাস্ক বিতরন। টাংগাইলের সফল নারী উদ্যোক্তা “পল্লবী পাল” তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় পরিষদের অভিষেক সম্পন্ন আগৈলঝাড়ায় সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় মিলাদ ও দোয়া অনুষ্ঠিত। নড়াইলে ব্যবসায়ীকে গুলির ঘটনায় জড়িত আরো এক আসামী গ্রেফতার বাংলাদেশ ও বিশ্বপরিচয় (পঞ্চম শ্রেণি) লালমনিরহাটে অন লাইনে সাংবাদিক দের প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের পরিচিতি সভা সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ সেন্ট্রাল অক্সিজেন সরবরাহের উদ্বোধন টুঙ্গিপাড়ায় বাবুল শেখের মাস্ক বিতরণ। দেশবিরোধী অপশক্তির বিরুদ্ধে মাঠে আছেন- টিপু কলোড়া ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি ও সম্পাদকক কে অবাঞ্ছিত ঘোষণা যৌতুকের দাবিতে মাগুরায় গৃহবধূকে পিটিয়ে হাত পা ভেঙ্গে দিয়ে হাসপাতালে ফেলে গেল স্বামী সাপাহারে আম গবেষণাগার ও সংরক্ষণাগার স্থাপনের দাবী আমচাষীদের শাহজাদপুরে কৃষকদের মাঝে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন বিতরণ মাহে রমজান উপলক্ষে জমিয়ত নেতা মাওলানা আফেন্দীর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ আগৈলঝাড়ায় সাবেক শিক্ষক ও কবি অবিচল মিয়া মান্নান সরদারের কুলখানি অনুষ্ঠিত। আগৈলঝাড়ায় দীর্ঘ নয় মাস পরও উদ্ধার হয়নি নিখোঁজ ফিলিপ। লালমনিরহাটে নাভিলা পরিবহন সরকারি আদেশ অমান্য করায় ২ টি বাস আটক করেছে ট্র্যাফিক পুলিশ সিনিয়র সাংবাদিক জামাল হোসেনের রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত ডামুড্যাতে বিশেষ আইন শৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত
৯ ডিসেম্বর গফরগাঁও মুক্ত দিবস

৯ ডিসেম্বর গফরগাঁও মুক্ত দিবস

মোঃমোস্তফা কামাল ময়মনসিংহ জেলা প্রতিনিধিঃ

আজ ৯ ডিসেম্বর ১৯৭১ সালের ৯ ডিসেম্বর ভোরের সূর্য উদয়ের সঙ্গে সঙ্গে মুক্তির উল্লাসে উড়ানো হয় স্বাধীন বাংলার পতাকা ।

গফরগাঁও হানাদার মুক্ত হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত গফরগাঁও সদরের নীলকরদের লঞ্চঘাট বর্তমানে বধ্যভূমি হিসেবে পরিচিত সেখানেই প্রতিদিন সন্ধ্যায় হানাদার বাহিনী ও তাদের সহযোগী রাজাকার, আলবদর ও আলশামস বাহিনী মিলে, নিরপরাধ মুক্তিকামী অসংখ্য মানুষকে লাইনে দাঁড় করিয়ে গুলি করে হত্যার পর ব্রহ্মপুত্র নদে ভাসিয়ে দিত।

এছাড়া গফরগাঁও সদরের ইমাম বাড়ির ঈদগাহ নিকট ব্রহ্মপুত্র নদের তীরে, মশাখালী রেলষ্টেশনের দক্ষিণে শীলা নদীর উপর রেলওয়ে সেতুতে, গয়েশপুর বাজারের কাছে, নিগুয়ারী মুক্তিযোদ্ধা বাজারের কাছে শত শত মুক্তিকামী মানুষকে বেয়নেট চার্জ করে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে পাশবিক নির্যাতন ও গুলি করে হত্যা করে।

১৫ নভেম্বর পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী চরআলগী ইউনিয়নের ৫১৪টি বাড়ি পুড়িয়ে দেয়।

১৯৭১সালে ২৩ মার্চ গফরগাঁও রেলওয়েষ্টেশন চত্বরে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা বেলাল আহম্মেদ স্বাধীন বাংলার পতাকা আনুষ্ঠানিকভাবে উত্তোলন করেন।

১৭ এপ্রিল পর্যন্ত গফরগাঁও হানাদার মুক্ত ছিল।

ঐ দিন থেকে হানাদার বাহিনী স্থল ও আকাশ পথে আক্রমণ করে ১৯ এপ্রিল গফরগাঁও দখল করে নেয়। এরপর অসংখ্যবার গফরগাঁওয়ের মুক্তিযোদ্ধারা হানাদার বাহিনীর সাথে সম্মুখযুদ্ধে অবতীর্ন হয় এবং অধিকাংশ যুদ্ধে বিজয় অর্জন করে।

উপজেলার ভয়াবহ সম্মুখ যুদ্ধটি সংঘটিত হয় অক্টোবর মাসের প্রথম সপ্তাহে ইকবাল-ই-কামাল এর নেতৃত্বে। কামাল কোম্পানি বাশিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পাকবাহিনীর ক্যাম্প আক্রমণ করে তিনদিন, তিনরাত, যুদ্ধ করার পর বিজয়ী হয় মুক্তিযোদ্ধারা।
স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ফয়েজ উদ্দিন ওই যুদ্ধে শহীদ হন।

মশাখালী স্টেশনের দক্ষিণে শীলা নদের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সর্বশেষ যুদ্ধ হয় ৫ ডিসেম্বর।
সেখানে মুক্তিযোদ্ধারা বিজয়ী হলে পাকহানাদার বাহিনী পিছনে হটে যখন গফরগাঁও সদরে আশ্রয় নেয় ইকবাল-ই-কামালের এর নেতৃত্বে কামাল কোম্পানি এবং আফসার বাহিনীর ব্যোম সিরাজের নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধারা পাকহানাদার বাহিনীর পিছু ধাওয়া করে গফরগাঁও সদরসহ উপজেলার সমস্ত এলাকা হানাদার মুক্ত করেন।

খবরটি শেয়ার করুন




somoyerbarta-rh6

© স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। এই ওয়েবসাইটের লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

All Right Reserve Daily Somoyer Barta © 2020. 

 
Design by Raytahost